পৃথিবীর জন্য ভালবাসা

পৃথিবীর জন্য ভালবাসা…

ছয় বছর বয়সী শুভ্র আর তার চার বছর বয়সী ছোট বোন কেয়া গ্রামের ছোট্ট বাজারের পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। হঠাৎ কেয়ার চোখ আটকে যায় পাশের একটি খেলনার দোকানে। সে মুগ্ধ নয়নে তাকিয়ে থাকে তারই মত দেখতে একটি পুতুলের দিকে। শুভ্র বুঝতে পারে যে তার বোনকে এই পুতুলটি না কিনে দিলেই নয়। সে হাত বাড়িয়ে পুতুলটি তুলে দেয় তার বোনের হাতে। কেয়া বেজায় খুশী হয়। তার চোখে মুখে মুক্তার মত হাসি ফুটে উঠে।

শুভ্র দাম মেটানোর জন্য বোনের হাত ধরে দোকানের ভিতরে যায়। দোকানদার আগে থেকেই ভাই বোনকে লক্ষ্য করেছিলো। শুভ্র খুব বিজ্ঞের মত দোকানদারকে জিজ্ঞেস করে ” আচ্ছা, এই সুন্দর পুতুলটির দাম কত?” দোকানদার ভাইয়ের প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে পাল্টা প্রশ্ন করে ” তুমি কি দিতে পারবে পুতুলটির জন্য?” শুভ্র তার পকেট হাতড়ে বের করে আনে সাগর তীরে কুড়িয়ে পাওয়া ঝিনুকের খোলগুলো। বলে, ” এই গুলো দিলে হবে?” দোকানদার খোলগুলো হাতে নিয়ে সত্যিকারের টাকার মত গুনতে থাকে। গুনা শেষে সে শুভ্রের দিকে তাকায়। শুভ্র কিছুটা বিচলিত হয়ে জিজ্ঞেস করে, ” আরও কি লাগবে?” দোকানদার বলে, “নাহ, অনেক বেশীই আছে, এই নাও বাকিগুলো।” শুভ্র খুশী হয়ে বোনকে নিয়ে দোকান হতে বের হয়ে বাসার পানে হাঁটা দেয়।

দোকানের কর্মচারী অবাক হয়ে মালিককে জিজ্ঞেস করে, ” এত দামী একটি খেলনা আপনি এই সামান্য খোলের বিনিময়ে দিয়ে দিলেন?” দোকানদার বলে উঠে,”দেখো, আমাদের কাছে হয়ত এই খোলগুলোর কোন মূল্য নেই, কিন্তু এই ছেলেটির কাছে খোলগুলো বেশ দামী। তার এখনও টাকার মূল্য বুঝে উঠার মত বয়স হয়ে উঠেনি। একদিন কিন্তু এই ছেলেটি বড় হবে এবং বুঝতে শিখবে টাকার মূল্য। সেদিন তার এই ঘটনার কথা মনে হবে যে সে ঝিনুকের খোল দিয়ে খেলনা কিনেছিল। সে আমার কথাও মনে করবে এবং উপলব্দি করতে শিখতে যে দুনিয়াতে ভালো মানুষ এখনও হারিয়ে যায় নি। এই ঘটনা তার মনে ছাপ ফেলবে। তারও ইচ্ছে করবে ভালো কিছু করার। তুমি যদি দুনিয়াতে ভালো কাজের বীজ বপন কর তাহলে সেটা সব খানে ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়বে। আর যদি খারাপ কাজ কর তাও ধীরে ধীরে সমাজের রোমে রোমে ছড়িয়ে পড়বে। প্রতিটি মানুষ ভাল বা খারাপ কাজের উৎস হিসেবে কাজ করে। তোমার ভালো কর্ম একদিন তোমার কাছে ফিরে আসবে। হয়ত তুমি তা উপলব্দি করতে পারবে না কিন্তু অবশ্যই তা ফিরে আসবে…”

(বিদেশী গল্পের ছায়া অবলম্বনে)

Leave a comment

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *